Sale!

একটি শীতের সকাল রচনা । শীতের সকালের দৃশ্য

Original price was: 2,900.00৳ .Current price is: 2,050.00৳ .

<h2>সরাসরি কিনতে ফোন করুন:yle=”color: #0000ff;”&amp;gt; 01622913640&amp;amp;lt;/h2>

>> সারাদেশে ক্যাশ অন ডেলিভারি করা হয় !

>> ডেলিভারি খরচ ঢাকার মধ্যে 60 ঢাকার বাইরে  ১০০ টাকা !

&

<p>gt;প্রোডাক্ট হাতে পেয়ে চেক করে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন !</p><p><p>&amp;gt;> ডেলিভারি খরচ সাশ্রয় করতে একসাথে কয়েকটি প্রোডাক্ট অর্ডার করুন !

983 in stock

Description

একটি শীতের সকাল রচনা । শীতের সকাল, এক অপার্থিব সৌন্দর্যের অপরূপ আয়োজন। যখন ঘুম ভাঙে, চোখ খুলে জানালার ফাঁক দিয়ে বাইরের দৃশ্য দেখি, তখন মন ভরে ওঠে এক অদ্ভুত আনন্দে।

একটি শীতের সকাল রচনা

কুয়াশার চাদর:

পড়ুনঃ মোটা হওয়ার ইন্ডিয়ান গুড হেলথ কিনতে এখনই ক্লিক করুন

চারপাশে ঘন কুয়াশার চাদর ছেয়ে আছে। মনে হচ্ছে যেন পৃথিবী নেমে এসেছে স্বর্গে। সূর্য উঠেছে, কিন্তু তার আলো কুয়াশা ভেদ করে আসতে পারছে না। তবুও, সূর্যের আলোর অভাবেও এক অদ্ভুত আলোকিতি আছে চারপাশে। কুয়াশার সাথে মিশে সূর্যের আলো তৈরি করেছে এক অপূর্ব রঙের খেলা।

শীতের আমেজ:

হাওয়ায় শীতের আমেজ। শরীরে একটা হিমে শিহরণ অনুভূত হয়। তবুও, এই শীতের আমেজ মনকে নাড়া দেয়

এক অদ্ভুত আনন্দে। শীতের সকালের এই আমেজই আলাদা করে তোলে একে অন্য ঋতু থেকে।

প্রকৃতির সৌন্দর্য:

শীতের সকালে প্রকৃতির সৌন্দর্য অপূর্ব। গাছপালায় শীতের স্পর্শে পাতা ঝরে গেছে। শুধু কিছু শুকনো পাতা ঝুলছে ডালে।

কুয়াশার সাথে মিশে এই শুকনো পাতাগুলো তৈরি করেছে এক অদ্ভুত দৃশ্য।

মানুষের জীবন:

শীতের সকালে মানুষের জীবনযাত্রাও একটু আলাদা হয়। গ্রামের মানুষ ঘুম থেকে উঠে চুলা জ্বালিয়ে

আগুনের ধারে বসে। শীতের তীব্রতা থেকে বাঁচতে অনেকে নানা পোশাক পরে।

উপসংহার:

শীতের সকাল শুধু সুন্দর নয়, বরং রহস্যময়ও বটে। এই সকালের রহস্যময় পরিবেশে মন ভরে ওঠে এক অদ্ভুত অনুভূতিতে।

শীতের সকাল যেন এক অপার্থিব জগতের আহ্বান জানায়।

একটি শীতের সকাল

শীতের সকাল আসে এক অপার্থিব রূপে। চারপাশে ঘন কুয়াশার চাদর মুড়ি দিয়ে ঘুমিয়ে আছে প্রকৃতি।

কাকের ডাক, শীতের হাওয়ার স্পর্শ, আর মৃদু রোদের আলো মিলে এক অপূর্ব সুর সৃষ্টি করে।

ঘুম থেকে উঠে জানালা দিয়ে বাইরে তাকালে মনে হয় যেন সবকিছু থমকে আছে। গাছের পাতা ঝরে গেছে, শুধু শরীরী কয়েকটা পাতা ঝুলছে। কুয়াশার কারণে দূরের দৃশ্য স্পষ্ট নয়। তবে কাছাকাছি কিছু দেখা যাচ্ছে। রাস্তাঘাট ফাঁকা, মানুষজন তেমন চোখে পড়ে না।

শীতের সকালের আরেক আকর্ষণ হলো শিশির। ঘাসের উপর, পাতার উপর, জিনিসপত্রের উপর – সর্বত্র জমে

আছে শিশিরের বিন্দু। সূর্যের আলোয় এগুলো ঝকঝকে করে চমকছে।

গ্রামবাংলার শীতের সকালের কিছু বিশেষ দিক আছে। ধোঁয়া ছেড়ে চুলার আগুন, গরুর গাভীর ডাক, পাখির কিচিরমিচি, আর মানুষের কাঁপুনি – এইসব মিলে এক অপূর্ব পরিবেশ তৈরি হয়। গ্রামের মানুষজন তখন তাদের প্রাত্যহিক কাজে ব্যস্ত থাকে। কেউ খেতের কাজ করছে, কেউ গরু চরিয়ে আনছে, কেউ আবার চুলা জ্বালিয়ে নাস্তা তৈরি করছে।

শীতের সকাল শুধু সুন্দরই নয়, মনোরমও বটে। এই সময়টায় প্রকৃতি এক অপূর্ব রূপ ধারণ করে। শীতের হাওয়া, কুয়াশা, শিশির, আর সূর্যের আলো মিলে এক অপার্থিব পরিবেশ তৈরি করে। শীতের সকালের এই সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য বেরিয়ে পড়া এক অপূর্ব অনুভূতি।

শীতের সকাল শুধু প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগ করার সময় নয়, বরং একটা নতুন দিন শুরু করার সময়ও বটে। এই সকালের শীতল হাওয়া আমাদের মনকে প্রফুল্ল করে তোলে। নতুন দিনের কাজের জন্য আমাদের মনে একটা নতুন উদ্যম জাগ্রত করে।

উপসংহার

শীতের সকাল এক অপূর্ব সময়। প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য, নতুন দিন শুরু করার জন্য এই সময়টা বেশ উপযুক্ত।

একটি শীতের সকাল: বিস্তারিত বিবরণ

শীতের সকাল আসে এক অপার্থিব রূপে। মৃদু শীতল হাওয়ার স্পর্শ, ঘন কুয়াশার চাদর, আর সূর্যের অস্পষ্ট আলো মিলে এক অপূর্ব পরিবেশ তৈরি করে। ঘুম থেকে উঠে জানালা দিয়ে বাইরে তাকালে মনে হয় যেন পৃথিবী থমকে আছে। গাছের পাতা ঝরে গেছে, শুধু কয়েকটা শরীরী পাতা ঝুলছে। কুয়াশার কারণে দূরের দৃশ্য স্পষ্ট নয়। তবে কাছাকাছি কিছুটা দেখা যাচ্ছে। রাস্তাঘাট ফাঁকা, মানুষজন তেমন চোখে পড়ে না।

গ্রামবাংলার শীতের সকাল:

গ্রামবাংলার শীতের সকালের এক আলাদা আকর্ষণ আছে। ধোঁয়া ছেড়ে চুলার আগুন, গরুর গাভীর ডাক, পাখির কিচিরমিচি, আর মানুষের কাঁপুনি – এইসব মিলে এক অপূর্ব পরিবেশ তৈরি হয়। গ্রামের মানুষজন তখন তাদের প্রাত্যহিক কাজে ব্যস্ত থাকে। কেউ খেতের কাজ করছে, কেউ গরু চরিয়ে আনছে, কেউ আবার চুলা জ্বালিয়ে নাস্তা তৈরি করছে।

শীতের সকালের শিশির:

আরেক আকর্ষণ হলো শিশির শীতের সকালের । ঘাসের উপর, পাতার উপর, জিনিসপত্রের উপর – সর্বত্র জমে আছে

শিশিরের বিন্দু। সূর্যের আলোয় এগুলো ঝকঝকে করে চমকছে। শিশিরের এই সৌন্দর্য দেখে মন ভরে যায়।

শীতের সকালের আনন্দ:

শুধু সুন্দরই নয় শীতের সকাল , মনোরমও বটে। এই সময়টায় প্রকৃতি এক অপূর্ব রূপ ধারণ করে। শীতের হাওয়া, কুয়াশা, শিশির, আর সূর্যের আলো মিলে এক অপার্থিব পরিবেশ তৈরি করে। শীতের সকালের এই সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য বেরিয়ে পড়া এক অপূর্ব অনুভূতি।

শীতের সকালের নতুন শুরু:

শুধু প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগ করার সময় নয় শীতের সকাল , বরং একটা নতুন দিন শুরু করার সময়ও বটে।

এই সকালের শীতল হাওয়া আমাদের মনকে প্রফুল্ল করে তোলে। নতুন দিনের কাজের জন্য আমাদের মনে একটা নতুন উদ্যম জাগ্রত করে।

শীতের সকালের বিভিন্ন দৃশ্য:

  • শহরের শীতের সকাল: শহরের শীতের সকাল গ্রামের চেয়ে আলাদা। রাস্তাঘাটে যানজট, মানুষজন
  • তাড়াহুড়ো করে কাজে যাচ্ছে। তবে শীতের সকালের সৌন্দর্য শহরেও কম নয়।
  • পাহাড়ের শীতের সকাল: পাহাড়ে শীতের সকালের এক অপরূপ সৌন্দর্য। তুষারাবৃত পর্বতমালা, কুয়াশার ঘন আবরণ ।

শীতের সকাল: প্রকৃতির অপার্থিব রূপ

এক অপার্থিব রূপে শীতের সকাল আসে। মৃদু শীতল হাওয়ার স্পর্শ, ঘন কুয়াশার চাদর, আর সূর্যের অস্পষ্ট আলোয় মিশে যেন এক স্বপ্নের জগত তৈরি হয়। ঘুম থেকে উঠে জানালা দিয়ে বাইরে তাকালে মনে হয় যেন পৃথিবী থমকে আছে। গাছের পাতা ঝরে গেছে, শুধু কয়েকটা শরীরী পাতা ঝুলছে। কুয়াশার কারণে দূরের দৃশ্য স্পষ্ট নয়। তবে কাছাকাছি কিছু দেখা যাচ্ছে। রাস্তাঘাট ফাঁকা, মানুষজন তেমন চোখে পড়ে না।

সকালের আরেক আকর্ষণ হলো শিশির। ঘাসের উপর, পাতার উপর, জিনিসপত্রের উপর – সর্বত্র জমে আছে শিশিরের বিন্দু। সূর্যের আলোয় এগুলো ঝকঝকে করে চমকছে। যেন হীরার খনি ছড়িয়ে দিয়েছে কেউ।

গ্রামবাংলার শীতের সকালের কিছু বিশেষ দিক আছে। ধোঁয়া ছেড়ে চুলার আগুন, গরুর গাভীর ডাক, পাখির কিচিরমিচি, আর মানুষের কাঁপুনি – এইসব মিলে এক অপূর্ব পরিবেশ তৈরি হয়। গ্রামের মানুষজন তখন তাদের প্রাত্যহিক কাজে ব্যস্ত থাকে। কেউ খেতের কাজ করছে, কেউ গরু চরিয়ে আনছে, কেউ আবার চুলা জ্বালিয়ে নাস্তা তৈরি করছে।

শীতের সকাল শুধু সুন্দরই নয়, মনোরমও বটে। এই সময়টায় প্রকৃতি এক অপূর্ব রূপ ধারণ করে। শীতের হাওয়া, কুয়াশা, শিশির, আর সূর্যের আলো মিলে এক অপার্থিব পরিবেশ তৈরি করে। শীতের সকালের এই সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য বেরিয়ে পড়া এক অপূর্ব অনুভূতি।

শুধু প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগ করার সময় নয় শীতের সকাল , বরং একটা নতুন দিন শুরু করার সময়ও বটে।

এই সকালের শীতল হাওয়া আমাদের মনকে প্রফুল্ল করে তোলে। নতুন দিনের কাজের জন্য আমাদের মনে একটা নতুন উদ্যম জাগ্রত করে।

বিস্তারিত বর্ণনা:

  • কুয়াশার চাদর: শীতের সকালের কুয়াশা যেন এক রহস্যের আবরণ তৈরি করে। দূরের দৃশ্য ঝাপসা, মনে হয় যেন সবকিছুই থমকে আছে।
  • শিশিরের বিন্দু: সূর্যের আলোয় ঝকঝকে শিশিরের বিন্দু যেন হীরার খনি। ঘাসের উপর, পাতার উপর, জিনিসপত্রের উপর – সর্বত্র এই বিন্দুগুলি ছড়িয়ে আছে।
  • গ্রামবাংলার শীতের সকাল: গ্রামবাংলার শীতের সকালে এক অপূর্ব রোমাঞ্চ থাকে। ধোঁয়া ছেড়ে চুলার আগুন, গরুর গাভীর ডাক, পাখির কিচিরমিচি । একটি শীতের সকাল রচনা

শীতের সকালের দৃশ্য

শীতের সকালের দৃশ্য মনোমুগ্ধকর ও রোমাঞ্চকর। প্রকৃতি তখন এক অপূর্ব রূপে ধারণ করে।

গ্রামবাংলার শীতের সকাল:

  • কুয়াশাচ্ছন্ন পরিবেশ: সূর্যোদয়ের আগে গ্রামবাংলা থাকে কুয়াশায় ঢাকা। ক্ষেত-খামার, গাছপালা, ঘরবাড়ি সব যেন মুখোশ পরে রেখেছে। ধীরে ধীরে সূর্যের আলো ফুটতে শুরু করলে কুয়াশা সরে যেতে থাকে।

  • শিশিরাচ্ছন্ন ঘাসপাতা: রাতের শীতের কারণে ঘাসপাতায় জমে থাকে শিশিরবিন্দু। সূর্যের আলোয় এসব শিশিরবিন্দু ঝলমল করে।

  • ধোঁয়া ওঠা চিমনী: গ্রামের ঘরবাড়িতে ঠান্ডা থেকে রক্ষা পেতে চুলার আগুন জ্বালানো হয়। চুলার আগুন থেকে উঠে আকাশে ধোঁয়া

  • পাখির কলরব: শীতের সকালে পাখিরা মধুর কলরবে মুখরিত করে পরিবেশ।

  • মানুষের কর্মকাণ্ড: গ্রামের মানুষ শীতের সকালে বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত থাকে। কেউ ক্ষেতে কাজ করছে, কেউ গবাদি পশুপালন করছে, কেউ আবার বাজারে যাচ্ছে।

শহরের শীতের সকাল:

  • কম মানুষের رفت و آمد: শীতের সকালে শহরে মানুষের رفت و آمد তুলনামূলক কম থাকে।

  • গাড়ির ধোঁয়া: শীতের ঠান্ডায় গাড়ির ইঞ্জিন থেকে বের হওয়া ধোঁয়া আকাশে লেগে থাকে।

  • বেঘর মানুষের দুর্দশা: শীতের ঠান্ডায় বেঘর মানুষদের দুর্দশা আরও বেড়ে যায়।

  • নির্মাণশ্রমিকদের কাজ: শীতের সকালে নির্মাণশ্রমিকরা তাদের কাজ শুরু করে।

  • স্কুলের শিশুরা: শীতের সকালে স্কুলের শিশুরা গরম কাপড় পরে স্কুলে যায়।

শীতের সকাল যদিও ঠান্ডা থাকে, তবুও এর এক অপূর্ব সৌন্দর্য রয়েছে। প্রকৃতির এই রূপ উপভোগ করা সত্যিই মনোরম।

শীতের সকালের বিস্তারিত চিত্র:

গ্রামবাংলার শীতের সকাল:

  • কুয়াশাচ্ছন্ন পরিবেশ: ভোরের আলো ফোটার আগে গ্রামবাংলা থাকে কুয়াশার ঘন আবরণে ঢাকা। ক্ষেত-খামার, গাছপালা, ঘরবাড়ি – সব যেন মুখোশ পরে রেখেছে। ধীরে ধীরে সূর্যের আলো ফুটতে শুরু করলে, পূর্ব দিগন্তে এক লালচে আভা দেখা যায়। কুয়াশা সরে যেতে থাকে, ধীরে ধীরে প্রকৃতির মুখাবয়ব উন্মোচিত হতে থাকে।

  • শিশিরাচ্ছন্ন ঘাসপাতা: রাতের শীতের কারণে ঘাসপাতায় জমে থাকে শিশিরবিন্দু। সূর্যের আলোয় এসব শিশিরবিন্দু ঝলমল করে, যেন হীরার খনি ছড়িয়ে দিয়েছে কেউ।

  • ধোঁয়া ওঠা চিমনী: গ্রামের ঘরবাড়িতে ঠান্ডা থেকে রক্ষা পেতে চুলার আগুন জ্বালানো হয়। চুলার আগুন থেকে উঠে আকাশে ধোঁয়া

  • পাখির কলরব: শীতের সকালে পাখিরা মধুর কলরবে মুখরিত করে পরিবেশ। ফソングের ডালে বসে তারা তাদের সুরেজ্ঞ গান গায়।

  • মানুষের কর্মকাণ্ড: গ্রামের মানুষ শীতের সকালে বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত থাকে। কেউ ক্ষেতে কাজ করছে, কেউ গবাদি পশুপালন করছে, কেউ আবার বাজারে যাচ্ছে। মাঠে কৃষক লাঙ্গল হাতে নামে, গরুর গাড়ি নিয়ে যাত্রা করে। গৃহস্থালীর কাজে ব্যস্ত থাকে গৃহিণীরা।

  • খাবার: শীতের সকালে গ্রামবাংলার মানুষের খাবারে থাকে নানা রকমের পিঠা। নতুন ধানের গুড় দিয়ে তৈরি হয় পিঠা।

শহরের শীতের সকাল:

  • কম মানুষের رفت و آمد: শীতের সকালে শহরে মানুষের رفت و آمد তুলনামূলক কম থাকে। রাস্তাঘাট থাকে ফাঁকা।

  • গাড়ির ধোঁয়া: শীতের ঠান্ডায় গাড়ির ইঞ্জিন থেকে বের হওয়া ধোঁয়া আকাশে লেগে থাকে।

  • বেঘর মানুষের দুর্দশা: শীতের ঠান্ডায় বেঘর মানুষদের দুর্দশা আরও বেড়ে যায়। রাস্তার ধারে ফুটপাতে তারা ঠান্ডা থেকে আশ্রয় নেওয়ার চেষ্টা করে।

  • নির্মাণশ্রমিকদের কাজ: শীতের সকালে নির্মাণশ্রমিকরা তাদের কাজ শুরু করে। ঠান্ডা সত্ত্বেও তারা পরিশ্রম করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করে।

  • স্কুলের শিশুরা: শীতের সকালে স্কুলের শিশুরা গরম কাপড় পরে স্কুলে যায়।

শীতের সকালের অন্যান্য দৃশ্য:

  • নদীর তীরে: শীতের সকালে নদীর তীরে কুয়াশার ঘন আবরণ থাকে। একটি শীতের সকাল রচনা

পড়ুনঃ  ব্রা – প্যান্টি কিনতে এখনই ক্লিক করুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের যোনি টাইট করার ক্রিম কিনতেএখনইক্লিক করুন

আরো পড়ুনঃ  ম দিয়ে ছেলেদের নাম / ম দিয়ে ছেলেদের  ইসলামিক নাম

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “একটি শীতের সকাল রচনা । শীতের সকালের দৃশ্য”

Your email address will not be published. Required fields are marked *