Sale!

যেমন কর্ম তেমন ফল ভাবসম্প্রসারণ

Original price was: 750.00৳ .Current price is: 500.00৳ .

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913640

>> সারাদেশে ক্যাশ অন ডেলিভারি করা হয় !

>> ডেলিভারি খরচ ঢাকার মধ্যে 60 ঢাকার বাইরে  ১০০ টাকা !

>প্রোডাক্ট হাতে পেয়ে চেক করে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন !

>> ডেলিভারি খরচ সাশ্রয় করতে একসাথে কয়েকটি প্রোডাক্ট অর্ডার করুন !

981 in stock

SKU: (38) মেয়েদের সেক্স বাড়ানোর মিস মি ঔষধ Category: Tags: ,

Description

যেমন কর্ম তেমন ফল ভাবসম্প্রসারণ ।”যেমন কর্ম তেমন ফল” – এই প্রবাদটি আমাদের জীবনের একটি মৌলিক সত্যকে তুলে ধরে। আমরা যা করি, তার ফলাফল আমাদের অবশ্যই ভোগ করতে হবে। ভালো কাজের ভালো ফল এবং মন্দ কাজের মন্দ ফল – এই নীতিটি প্রকৃতির একটি অপরিহার্য নিয়ম।

যেমন কর্ম তেমন ফল: ভাবসম্প্রসারণ

এই প্রবাদটি আমাদের জীবনে নীতিবোধ ও দায়িত্ববোধ জাগ্রত করে। যখন আমরা জানি যে, আমাদের প্রতিটি কর্মেরই একটি পরিণতি আছে, তখন আমরা ভালো কাজ করতে উৎসাহিত হই এবং মন্দ কাজ করা থেকে বিরত থাকি।

পড়ুনঃ মোটা হওয়ার ইন্ডিয়ান গুড হেলথ কিনতে এখনই ক্লিক করুন

এই প্রবাদের ভাবসম্প্রসারণ কতগুলো দিক থেকে করা যায়:

১) ব্যক্তিগত জীবনে প্রয়োগ:

  • শিক্ষা ও কর্মজীবন: আমাদের যদি ভালো শিক্ষা অর্জনের জন্য পরিশ্রম করি, তাহলে ভবিষ্যতে ভালো চাকরি ও সুন্দর জীবনযাপন করতে পারব। অন্যদিকে, যদি আমরা অলস ও অমনোযোগী হই, তাহলে ভবিষ্যতে আমাদের অনেক কষ্টের সম্মুখীন হতে হবে।
  • স্বাস্থ্য: আমাদের যদি নিয়মিত ব্যায়াম করি, স্বাস্থ্যকর খাবার খাই এবং পর্যাপ্ত ঘুমাই, তাহলে আমরা সুস্থ ও দীর্ঘজীবন লাভ করতে পারব। অন্যদিকে, যদি আমরা অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন করি, তাহলে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।
  • সম্পর্ক: আমাদের যদি অন্যদের প্রতি ভালোবাসা, সম্মান ও সহানুভূতি দেখাই, তাহলে আমাদের পরিবার, বন্ধুবান্ধব ও সহকর্মীদের সাথে ভালো সম্পর্ক গড়ে উঠবে। অন্যদিকে, যদি আমরা অহংকারী, ঈর্ষান্বিত ও লোভী হই, তাহলে আমাদের সম্পর্কগুলো নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

২) সামাজিক জীবনে প্রয়োগ:

  • সমাজসেবা: আমরা যদি সমাজের উন্নয়নের জন্য কাজ করি, তাহলে সমাজ সকলের জন্য বাসযোগ্য হয়ে উঠবে। অন্যদিকে, যদি আমরা শুধু নিজের স্বার্থের কথা চিন্তা করি, তাহলে সমাজে অসাম্য ও অন্যায় বৃদ্ধি পাবে।
  • পরিবেশ রক্ষা: আমরা যদি পরিবেশের যত্ন নেই, তাহলে পৃথিবী বাসযোগ্য হয়ে উঠবে না। অন্যদিকে, যদি আমরা বৃক্ষরোপণ করি, পরিবেশ দূষণ রোধ করি এবং প্রাকৃতিক সম্পদের যত্ন নেই, তাহলে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি সুন্দর পৃথিবী তৈরি করতে পারব।
  • শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান: আমরা যদি ধর্ম, জাতি, বর্ণ ও ভাষার পার্থক্য ভুলে সকলের প্রতি সহিষ্ণুতা ও শ্রদ্ধাশীল হই,
  • তাহলে সমাজে শান্তি ও সম্প্রীতি বিরাজ করবে। অন্যদিকে, যদি আমরা বিভেদ ও ঘৃণার বীজ বপন করি ।

“যেমন কর্ম তেমন ফল” ভাবসম্প্রসারণ:

ভূমিকা:

“যেমন কর্ম তেমন ফল” – এই প্রবাদটি আমাদের জীবনের একটি মৌলিক নীতি বহন করে। আমাদের প্রতিটি কর্মেরই একটি প্রতিক্রিয়া থাকে, এবং সেই প্রতিক্রিয়া ভালো বা মন্দ হতে পারে আমাদের কর্মের উপর নির্ভর করে। এই ভাবধারার মাধ্যমে আমরা আমাদের জীবনকে আরও সুন্দর ও সার্থক করে তুলতে পারি।

প্রবাদের ব্যাখ্যা:

  • কর্ম: আমাদের প্রতিটি কাজ, চিন্তাভাবনা এবং উক্তিকে কর্ম বলা হয়।
  • ফল: আমাদের কর্মের পরিণতি বা প্রতিক্রিয়াকে ফল বলা হয়।

প্রবাদের তাৎপর্য:

  • আমাদের প্রতিটি কর্মেরই গুরুত্ব আছে।
  • ভালো কর্মের ফল ভালো হবে, আর মন্দ কর্মের ফল মন্দ হবে।
  • আমাদের ভাগ্য আমাদের হাতেই।
  • আমরা যদি ভালো কর্ম করি, তাহলে আমাদের জীবন সুন্দর ও সার্থক হবে।

উদাহরণ:

  • একজন ছাত্র যদি নিয়মিত পড়াশোনা করে, তাহলে সে ভালো ফলাফল করবে।
  • একজন ব্যক্তি যদি অন্যদের সাহায্য করে, তাহলে সে অনেক আনন্দ পাবে।
  • একজন ব্যক্তি যদি মিথ্যা বলে, তাহলে তার বিশ্বাসযোগ্যতা নষ্ট হবে।

প্রবাদের প্রয়োগ:

  • আমাদের সৎ, ন্যায়পরায়ণ এবং দানশীল হওয়া উচিত।
  • অন্যদের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়া উচিত।
  • পরিশ্রমী হওয়া উচিত এবং লক্ষ্য অর্জনে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ হওয়া উচিত।
  • নেতিবাচক চিন্তাভাবনা থেকে দূরে থাকা উচিত।

উপসংহার:

“যেমন কর্ম তেমন ফল” এই প্রবাদটি আমাদের জীবনকে সঠিক পথে পরিচালিত করতে সাহায্য করে।

আমাদের উচিত এই প্রবাদটি মনে রেখে আমাদের জীবনকে আরও সুন্দর ও সার্থক করে তুলতে।

আরও কিছু চিন্তা:

  • এই প্রবাদটি কেবল ধর্মীয় বিশ্বাসের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়, বরং এটি বিজ্ঞানের নীতির সাথেও সামঞ্জস্যপূর্ণ।
  • আমাদের কর্মের ফল আমরা সবসময় তাৎক্ষণিকভাবে নাও পেতে পারি, তবে অবশ্যই পাব।
  • আমাদের উচিত আমাদের কর্মের জন্য দায়িত্বশীল হতে এবং এর ফলাফল গ্রহণ করতে প্রস্তুত থাকতে।

আশা করি এই ভাবসম্প্রসারণটি আপনাদের ভালো লেগেছে।

যেমন কর্ম তেমন ফল: ভাবসম্প্রসারণ

“যেমন কর্ম তেমন ফল” একটি প্রাচীন বাণী যা আমাদের কর্মের ফলাফল সম্পর্কে সচেতন করে তোলে।

এই সহজ বাক্যটিতে গভীর অর্থ নিহিত রয়েছে যা আমাদের জীবনের বিভিন্ন দিক প্রতিফলিত করে।

কর্মের প্রভাব:

  • ব্যক্তিগত জীবনে: আমাদের প্রতিদিনের ছোটো ছোটো কর্ম, চিন্তাভাবনা এবং অভ্যাসের ফলাফল আমাদের ব্যক্তিগত জীবনে স্পষ্টভাবে প্রতিফলিত হয়। যদি আমরা নিয়মিত ব্যায়াম করি, স্বাস্থ্যকর খাবার খাই এবং পর্যাপ্ত ঘুমাই, তাহলে আমরা শারীরিকভাবে সুস্থ থাকব এবং ভালো অনুভব করব। অন্যদিকে, যদি আমরা অস্বাস্থ্যকর অভ্যাসে লিপ্ত থাকি, তাহলে আমাদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের উপর नकारात्मक প্রভাব পড়বে।
  • সামাজিক জীবনে: আমাদের কর্মের প্রভাব শুধুমাত্র নিজের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে না, বরং এটি আমাদের চারপাশের মানুষদেরও প্রভাবিত করে। যদি আমরা অন্যদের প্রতি সহানুভূতিশীল, সহায়ক এবং দাতব্য হই, তাহলে আমাদের সম্পর্কের উন্নতি হবে এবং আমরা একটি ইতিবাচক সামাজিক পরিবেশে বাস করব। অন্যদিকে, যদি আমরা স্বার্থপর, লোভী এবং ঈর্ষাপরায়ণ হই, তাহলে আমাদের সম্পর্কের অবনতি হবে এবং আমরা একাকী ও বিচ্ছিন্ন বোধ করব।
  • পেশাগত জীবনে: আমাদের কর্মক্ষেত্রেও আমাদের কর্মের ফলাফল দেখা যায়। যদি আমরা পরিশ্রমী, নিবেদিতপ্রাণ এবং দায়িত্বশীল হই, তাহলে আমরা পদোন্নতি এবং সাফল্য অর্জন করব। অন্যদিকে, যদি আমরা অলস, অমনোযোগী এবং অবিশ্বস্ত হই, তাহলে আমাদের কর্মজীবনে অগ্রগতি হবে না এবং আমরা ব্যর্থতার মুখোমুখি হতে পারি।

উদাহরণ:

  • একজন শিক্ষার্থী যদি নিয়মিত পড়াশোনা করে এবং কঠোর পরিশ্রম করে, সে ভালো ফলাফল করবে এবং তার ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল হবে।
  • একজন ব্যবসায়ী যদি নৈতিকভাবে ব্যবসা পরিচালনা করে এবং তার কর্মীদের প্রতি ন্যায্য আচরণ করে,
  • সে সফল হবে এবং তার ব্যবসা সমৃদ্ধি লাভ করবে।
  • একজন রাষ্ট্রনেতা যদি দেশের জনগণের জন্য কাজ করে এবং তাদের উন্নতিতে মনোনিবেশ করে,
  • সে জনপ্রিয় হবে এবং দেশের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

উপসংহার:

“যেমন কর্ম তেমন ফল” একটি সার্বজনীন নীতি যা আমাদের সকলের জন্য প্রযোজ্য। আমাদের কর্মের মাধ্যমেই আমরা আমাদের ভাগ্য নির্ধারণ করি। যদি আমরা ভালো কর্ম করি, তাহলে আমরা ভালো ফলাফল পাব। অন্যদিকে, যদি আমরা খারাপ কর্ম করি, তাহলে আমরা খারাপ ফলাফলের সম্মুখীন

“যেমন কর্ম তেমন ফল” ভাবসম্প্রসারণ:

ভূমিকা:

“যেমন কর্ম তেমন ফল” একটি প্রাচীন বাংলা প্রবাদ যা আমাদের কর্মের ফলাফল সম্পর্কে স্মরণ করিয়ে দেয়। এই প্রবাদের অর্থ হল আমরা যে ধরণের কাজ করি তার ফলাফলও আমরা ঐ ধরণেরই পাব। ভালো কাজের ভালো ফল এবং মন্দ কাজের মন্দ ফল আসে।

প্রবাদের ব্যাখ্যা:

এই প্রবাদটি আমাদেরকে শেখায় যে আমাদের জীবনে যা কিছু ঘটে তার জন্য আমরাই দায়ী। আমাদের ভাগ্য আমাদের নিজস্ব হাতে। আমরা যদি ভালো কাজ করি, ভালো চিন্তা করি এবং ভালো জীবনযাপন করি, তাহলে আমরা ভালো ফলাফল পাব। অন্যদিকে, যদি আমরা মন্দ কাজ করি, মন্দ চিন্তা করি এবং মন্দ জীবনযাপন করি, তাহলে আমরা মন্দ ফলাফল পাব।

উদাহরণ:

  • একজন শিক্ষার্থী যদি কঠোর পরিশ্রম করে এবং তার পড়াশোনায় মনোযোগ দেয়, সে ভালো ফলাফল পাবে এবং তার জীবনে সফল হবে।
  • একজন ব্যক্তি যদি অন্যদের সাহায্য করে এবং ভালো কাজ করে, সে সমাজে সম্মান পাবে এবং সকলের প্রিয় হবে।
  • একজন ব্যক্তি যদি মিথ্যা বলে এবং অন্যদের প্রতারণা করে, সে অবিশ্বস্ত হিসেবে পরিচিত হবে এবং সমাজে তার কোন মর্যাদা থাকবে না।

প্রবাদের গুরুত্ব:

“যেমন কর্ম তেমন ফল” প্রবাদটি আমাদের জীবনে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই প্রবাদটি আমাদেরকে নীতিবান জীবনযাপন করতে এবং ভালো কাজ করতে অনুপ্রাণিত করে। এটি আমাদেরকে শেখায় যে আমাদের ভাগ্য আমাদের নিজস্ব হাতে এবং আমরা যদি চাই তাহলে আমরা আমাদের জীবনকে সুন্দর করে তুলতে পারি।

উপসংহার:

“যেমন কর্ম তেমন ফল” প্রবাদটি একটি সার্বজনীন সত্য যা সকলের জন্য প্রযোজ্য। এই প্রবাদটি আমাদেরকে সচেতন করে তোলে যে আমাদের প্রতিটি কর্মের একটি ফলাফল আছে। তাই আমাদের উচিত ভালো কাজ করা এবং ভালো ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করা।

কিছু অতিরিক্ত চিন্তা:

  • এই প্রবাদটি আমাদেরকে শুধু ভালো কাজ করার জন্যই অনুপ্রাণিত করে না, বরং মন্দ কাজ থেকে বিরত থাকার জন্যও সতর্ক করে।
  • এই প্রবাদটি আমাদেরকে ধৈর্য ধরতে এবং ভালো ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করতে শেখায়।
  • এই প্রবাদটি আমাদেরকে আশাবাদী হতে এবং বিশ্বাস করতে শেখায় যে আমরা যদি চেষ্টা করি তাহলে আমরা যেকোনো কিছু অর্জন করতে পারি।

 

যেমন কর্ম তেমন ফল: ভাবসম্প্রসারণ

“যেমন কর্ম তেমন ফল” – এই প্রবাদটি আমাদের জীবনের একটি মৌলিক সত্যকে তুলে ধরে।

আমাদের প্রতিটি কর্ম, ভালো বা মন্দের, এর ফল নিয়ে আসে। আমরা যা বীজ বপন করি, তার ফলই আমরা কাটব।

এই প্রবাদটি বিভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করা যেতে পারে।

কর্মের প্রভাব:

  • বাস্তব জীবনে: আমাদের প্রতিদিনের জীবনে আমরা এর প্রমাণ দেখতে পাই। যারা পরিশ্রমী এবং নীতিবান, তারা জীবনে সাফল্য অর্জন করে। অন্যদিকে, যারা অলস এবং অনৈতিক, তারা এর পরিণাম ভোগ করে।
  • নৈতিক দিক থেকে: এই প্রবাদটি আমাদের নৈতিকতার শিক্ষা দেয়। আমাদের সৎ, ন্যায়পরায়ণ এবং অন্যের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়া উচিত। কারণ, আমাদের ভালো কর্মের মাধ্যমেই আমরা সমাজে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারি।
  • আধ্যাত্মিক দিক থেকে: অনেক ধর্মে এই ধারণার সাথে “কর্মফল” নীতির সম্পর্ক রয়েছে। কর্মফল অনুসারে,

আমাদের আত্মা পরকালে বিভিন্ন জন্ম লাভ করে। ভালো কর্মের মাধ্যমেই আমরা মুক্তি লাভ করতে পারি।

ভাবসম্প্রসারণ:

  • ব্যক্তিগত জীবনে: আমরা যদি ব্যক্তিগত জীবনে এই নীতি অনুসরণ করি, তাহলে আমাদের জীবন আরও সুন্দর ও সুখী হবে। আমাদের লক্ষ্য অর্জনে সাহায্য করবে এবং আমাদের চারপাশের মানুষের সাথে ভালো সম্পর্ক গড়ে তুলতে সাহায্য করবে।
  • পেশাগত জীবনে: পেশাগত জীবনেও এই নীতি প্রযোজ্য। যারা পরিশ্রমী এবং দায়িত্বশীল, তাদের কর্মক্ষেত্রে উন্নতির সম্ভাবনা বেশি থাকে।
  • সামাজিক জীবনে: সমাজের উন্নয়নেও এই নীতি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যারা সমাজের জন্য কাজ করে,

তারা সমাজের শ্রদ্ধা ও সম্মান অর্জন করে।

উপসংহার:

“যেমন কর্ম তেমন ফল” এই প্রবাদটি আমাদের জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা দেয়।  আমাদের সকলের উচিত এই নীতি অনুসরণ করে জীবনে সফলতা অর্জন করা এবং সমাজের উন্নয়নে অবদান রাখা।

পড়ুনঃ  ব্রা – প্যান্টি কিনতে এখনই ক্লিক করুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের যোনি টাইট করার ক্রিম কিনতে এখনই ক্লিক করুন

আরো পড়ুনঃ  ম দিয়ে ছেলেদের নাম / ম দিয়ে ছেলেদের  ইসলামিক নাম

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “যেমন কর্ম তেমন ফল ভাবসম্প্রসারণ”

Your email address will not be published. Required fields are marked *